মশা দমনে ঘরোয়া উপায়

0
110

লাইফস্টাইল ডেস্ক: রাজধানী সহ দেশজুড়ে এডিস মশার মতো অন্য সব মশার আগ্রাসন বেড়ে চলেছে। এতে করে ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া রোগ যেমন বাড়ছে, তেমনি মশা বাহিত রোগ ম্যালেরিয়ার ঝুঁকিও আছে। সিটি কর্পোরেশন বা পৌরসভা কর্তৃপক্ষ মশা নিধনের নানা উদ্যোগ নিয়েও সফল হতে পারছে না। যে বিষয়টির উপর বিভিন্ন বিজ্ঞাপন বা ঘোষণায় বলা হচ্ছে, তা হলো ঘরের আশেপাশের পুকুর, খোলা পাত্রে পানি জমে যেন মশা ডিম পাড়তে না পারে, সে দিকে খেয়াল রাখতে হবে সব সময়। এই অবস্থায় ঘর থেকে মশা দূর করার কিছু প্রাকৃতিক উপায় অবলম্বন করে নিজেকে নিরাপদ রাখতে হলে আপনাকেও উদ্যোগী হতে হবে। চলুন জেনে নেই মশা দূর করার কিছু প্রাকৃতিক উপায়।

লেবু ও লবঙ্গ: একটি লেবু অর্ধেক কেটে তাতে কয়েকটি লবঙ্গ ঢুকিয়ে দিন। প্রাকৃতিক এই উপায়ে অনেকেই ঘর থেকে মশা দূর করে থাকেন। এমনকি বলিউড স্টার অক্ষয় কুমারও নাকি তার ঘরের মশা দূর করতে এই উপায় অবলম্বন করেন। তেমনটা জানিয়ে তিনি বলেছেন, তার দাদির কাছ থেকে কার্যকর এই উপায়টি শিখেছেন।

যেসব গাছ মশা দূর করে: মশা গন্ধ শুঁকেই মানুষের গায়ে কামড় বসায়। আর কিছু গন্ধ আছে যা থেকে তারা দূরে থাকতে চায়। এমন কয়েকটি গাছ আছে, যেগুলোর গন্ধ মশা দূর করে। যেমন- পুদিনা, তুলসি, ম্যারিগোল্ড, ক্যাটনিপ। এসব গাছ আপনার ঘরে বা ঘরের আশেপাশে লাগাতে পারেন।

ল্যাভেন্ডার: মশা দূর করার অন্যতম একটি প্রাকৃতিক অস্ত্র হলো ল্যাভেন্ডার। আপনি বিভিন্ন উপায়ে এটি ব্যবহার করতে পারেন। ঘরে বা ঘরের আশেপাশে ল্যাভেন্ডার গাছ লাগাতে পারেন। ল্যাভেন্ডার অয়েল লাগাতে পারেন শরীরে, এমনকি ঘরে ল্যাভেন্ডার গন্ধযুক্ত মোমবাতি ব্যবহার করতে পারেন।

নিম ও লেভেন্ডার অয়েল: নিমের তেল মশা দূর করতে বেশ কার্যকর। গবেষণায় জানা গেছে, যেকোনো ক্যামিকেল সমৃদ্ধ কয়েল বা ভেপোরাইজারের চেয়ে নিমের তেল ১০ গুণ কার্যকর। ত্বকে ব্যবহার করার আগে একই পরিমাণে নিম ও লেভেন্ডার অয়েল মিশিয়ে নিতে পারেন। এতে উপকার পাবেন।

লেমন ইউক্যালিপটাস অয়েল: গবেষণায় দেখা গেছে, লেমন ইউক্যালিপটাস অয়েল মশা দূর করতে বেশ কার্যকর। ল্যাভেন্ডারের মতো এটিও বেশ কয়েকভাবে ব্যবহার করতে পারেন আপনি।

বার্বিকিউতে রোজমেরি: বাগানে বা জঙ্গলে বার্বিকিউ তৈরি করতে গেলে রোজমেরি ব্যবহার করতে পারেন। গ্রিল তৈরিতে যে কয়লা বা কাঠ পোড়াচ্ছেন, তাতে রোজমেরি গাছের কিছু পরিষ্কার পাতা ছুঁড়ে দিতে পারেন। এতে গ্রিলে অদ্ভুত একটা ফ্লেভার যেমন যোগ হবে, তেমনি মশাও দূর হবে।

সিট্রোনেলা ক্যান্ডেল: অনেক ডিপার্টমেন্টাল স্টোরে সিট্রোনেলা ক্যান্ডেল পাওয়া যায়। সেসব মোমবাতি মশা দূর করে।

রসুন: শুনতে অদ্ভুত মনে হলেও মশা দূর করতে রসুনও কিন্তু বেশ কার্যকর। আপনি যদি রসুন খান বেশি, তাহলে মশা আর আপনার কাছে আসবে না। রসুন খাওয়ার ফলে শরীর থেকে যে ঘাম নি:সৃত হয়, তার কারণে মশা দূর হয়। এছাড়া কয়েক কোষ রসুন থেতলে, একটি পাত্রে পানি নিয়ে তা গরম করতে পারেন। এই পানি মশা দূর করবে। একটি স্প্রে বোতলে ওই দ্রবণটি নিয়ে ঘরের বিভিন্ন অংশে স্প্রে করলে মশা পালাবে।

অ্যাপেল সিডার ভিনেগার: আপনি কি জানেন অ্যাপেল সিডার ভিনেগার যে মশা দূর করতে পারে? তাই মশা দূর করতে এই ভিনেগার যেমন পান করতে পারেন, তেমনি এর স্প্রে ঘরে বা শরীরে ছিটাতে পারেন।

জনসন বেবি অয়েল: হ্যাঁ, ঠিকই পড়েছেন আপনি। মশা আপনার কাছ থেকে দূরে রাখতে হলে এটি ব্যবহার করতে পারেন। জনসন বেবি অয়েল গায়ে মেখে অনেক মানুষই উপকার পাচ্ছেন।

মশাখাদক প্রাণীর সহায়তা: অন্য সব প্রাণীর মতো প্রকৃতিতে মশা খাওয়ার প্রাণীও আছে। তাই আপনার বাসার পাশে মশাখাদক প্রাণী যেন থাকে, সে ব্যবস্থা করতে পারেন। যেসব প্রাণী মশা খায়, সেগুলো হলো- বাদুড়, ব্যাঙ, ফড়িং ও মাছ।

তথ্যসূত্র: অ্যারোটারমাইট অ্যান্ড পেস্ট কন্ট্রোল, ইন্ডিয়া টুডে